দেশের সব কৃষিপণ্যের খবর দেবে ‘ফুড ফর নেশন’

দেশের সব কৃষিপণ্যের খবর দেবে ‘ফুড ফর নেশন’

বাংলাদেশের প্রথম উম্মুক্ত কৃষিপণ্য প্লাটফর্ম ‘ফুড ফর নেশন’ (foodfornation.gov.bd)’ এর উদ্বোধন হলো। আজ শনিবার কৃষি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক এ সরকারি সেবা পোর্টাল উদ্বোধন করে।

অনুষ্ঠানে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক সভাপতিত্ব করেন।

কৃষক, বাজারজাতকারী, আড়ৎদার, বিপণনকারী আর প্রাতিষ্ঠানিক ভোক্তা একই প্লাটফর্মে পণ্যের দাম আর মানের যাচাই করতে পারবেন। এর পাশাপাশি তারা সরাসরি বাণিজ্যিক যোগাযোগেরও সুযোগ পাবেন। দেশব্যাপী সহজ ও মোবাইল বান্ধব ইন্টারফেসের এ প্লাটফর্মে ক্রেতা-বিক্রেতা রেজিস্ট্রশন করে কৃষি জাতীয় সকল ভোগ্য ফসল বা সবজির ক্যাটাগরি নির্বাচন করে বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন, কিনতে পারবেন।

স্টার্টআপ বাংলাদেশের মাধ্যমে এখানে যুক্ত সকল ধরণের ক্রেতা– বিক্রেতার প্রোফাইলে দেওয়া মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করে শাকসবজিসহ সকল কৃষিপণ্য কেনা বা এ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করতে পারবেন। পণ্য ক্রয় করে মূল্য পরিশোধ ক্রেতা এবং বিক্রেতা তাদের সুবিধামতো মাধ্যম নির্বাচন করে লেনদেন করবেন। এই মার্কেটপ্লেসটি সম্পূর্ণ ফ্রি প্লাটফর্ম। এর ব্যবহার করে ক্রয়- বিক্রয় বা বিজ্ঞাপন দেয়া যাবে বিনামূল্যে।

এছাড়া এটিতে কৃষি ব্যবসায়ীদের ডেটাবেইস, ফসল ও কৃষিপণ্যের দৈনিক বাজার দর এবং সহযোগিতার জন্য কৃষি বিপণন অধিদপ্তর ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের যোগাযোগ নম্বর থাকবে।

অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘সারা দেশের খাদ্য ও কৃষিপণ্য ব্যবস্থাপনায় যে নতুন চ্যালেঞ্জ আমাদের সামনে রয়েছে তা মোকাবেলায় এই উন্মুক্ত প্ল্যাটফর্মটি খুবই সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। বাংলাদেশে উৎপাদিত শাকসবজি, মৌসুমি ফলসহ কৃষিপণ্যের একটা বিরাট অংশ বিপণনের অভাবে প্রতিবছর অপচয় ও নষ্ট হয়। এ প্ল্যাটফর্মটি যথাযথভাবে কাজ করলে কৃষিপণ্যের অপচয়রোধেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।’

কৃষিমন্ত্রী বলেন, মহামারি করোনার কারণে শাকসবজি, মৌসুমি ফলসহ কৃষিপণ্যের স্বাভাবিক পরিবহন এবং সঠিক বিপণন ব্যাহত হচ্ছে। কৃষকেরা তাদের উৎপাদিত কৃষিপণ্য সময়মতো বিক্রি করতে পারছে না, আবার বিক্রি করে অনেক ক্ষেত্রে ন্যায্যমূল্যও পাচ্ছে না।

মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে কৃষিপণ্যের বাজারজাত করা সবচেয়ে বড় সমস্যা হিসাবে দেখা দিয়েছে। এ অবস্থায়, প্রান্তিক কৃষকেরা যাতে ন্যায্যমূল্য পেতে পারে এবং সেই সাথে ভোক্তারা যাতে তাদের চাহিদা মোতাবেক সহজে, স্বল্প সময়ে এবং সঠিক মূল্যে প্রয়োজনীয় খাদ্যশস্য ও কৃষিপণ্য পেতে পারে সে লক্ষ্যে ‘ফুড ফর ন্যাশন’ প্ল্যাটফর্মটি চালু করা হয়েছে।

‘ফুড ফর ন্যাশন’ প্ল্যাটফর্মটি তৈরি ও সমন্বয়ের কাজ করছে- তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের এটুআই এবং উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমী প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প (আইডিয়া) এবং কৃষি মন্ত্রণালয়, কৃষি বিপণন অধিদপ্তর ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। এছাড়া সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে থাকছে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ করপোরেশন (বিআরটিসি), ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইক্যাব)। পাশাপাশি আইডিয়া প্রকল্প বা স্টার্টআপ বাংলাদেশের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে পরিচালিত তরুণ উদ্যোক্তা কোম্পানি- কৃষাণ, আই ফার্মার, ডিজিটাল আড়ৎদার, চালডাল, শপআপ, ট্রাক লাগবে, সহজ ট্রাক এবং পাঠাও, খাস ফুড সহ প্রায় ১২টি তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠান এ প্ল্যাটফর্মে সেবা প্রদানের লক্ষ্যে সংযুক্ত থাকবে। আইসিটি বিভাগের এটুআই (a2i) এর ‘একশপ’ উদ্যোগ ‘ফুড ফর ন্যাশন’ প্ল্যাটফর্মটির সহায়তায় সংশ্লিষ্ট খাদ্যশস্য ও কৃষিপণ্যের কেনাবেচার জন্য প্রয়োজনীয় সহায়তা করা হবে।

আজকের অনুষ্ঠানে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনা‌ইদ আহ্‌মেদ বলেন, দেশের চাহিদা অনুসারে কৃষিপণ্যের উৎপাদন যথেষ্ট হলেও কৃষকেরা তাঁদের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য থেকে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই বঞ্চিত হচ্ছে। আবার ভোক্তারাও সব সময় সঠিক মূল্যে তাদের চাহিদা মোতাবেক কৃষিপণ্য পাচ্ছে না। এর পেছনে অন্যতম কারণগুলো হলো তথ্যপ্রযুক্তিকে কাজে লাগানোর ক্ষেত্রে কৃষকসহ সাধারণ জনগণের সঠিক জ্ঞান ও উপযুক্ত প্ল্যাটফর্মের অভাব, পরিবহনব্যবস্থায় দৌরাত্ম্য, অসাধু ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট, মধ্যস্বত্বভোগীদের দৌরাত্ম্য, চাহিদা ও জোগানের মধ্যে সমন্বয়ের অভাব এবং সার্বিকভাবে সঠিক ব্যবস্থাপনার অভাব।

জুনাইদ আহমেদ বলেন, এসব সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে বাংলাদেশে এই প্রথম ‘ফুড ফর নেশন’ উন্মুক্ত প্ল্যাটফর্মটি চালু করা হয়েছে।

এই প্ল্যাটফর্মে ফসল ও কৃষিপণ্যের দৈনিক বাজার দর এবং সহযোগিতার জন্য কৃষি বিপণন অধিদপ্তর ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের যোগাযোগ নম্বর থাকবে।

ফুড ফর ন্যাশন প্ল্যাটফর্মটি তৈরি ও সমন্বয়ের কাজ করছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের এটুআই এবং উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমি প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প এবং কৃষি মন্ত্রণালয়, কৃষি বিপণন অধিদপ্তর ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। এ ছাড়া সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে থাকছে বাংলাদেশ ডাক বিভাগ, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশন, ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ।

এ অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নাসিরুজ্জামান, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেব, কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফ, আইডিইএ প্রকল্পের পরিচালক সৈয়দ মজিবুল হক, কৃষি মন্ত্রণালয়, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর, কৃষি বিপণন অধিদপ্তর, ডাক বিভাগ, বিআরটিসি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল, এটুআই, আইডিয়া প্রকল্পসহ, স্টার্টআপ চট্টগ্রাম সহ বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তা ও উদ্যোক্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *